Breaking News
Home / অর্থ ও বাণিজ্য / ইরাক সফরে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

ইরাক সফরে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

বড়দিনের চমক হিসেবে হঠাৎ করেই ইরাকে মার্কিন সেনাদের মাঝে উপস্থিত হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার এক আকস্মিক সফরে ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্পকে সঙ্গে নিয়ে ইরাকে যান মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তবে মার্কিন সেনাদের সঙ্গে সময় কাটালেও ইরাকের নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেননি ট্রাম্প। এদিকে ট্রাম্পের এ ঝটিকা সফরের কঠোর সমালোচনা করে একে ইরাকের সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘন হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন দেশটির নেতারা। বড়দিন উপলক্ষে ইরাকে মোতায়েন মার্কিন সেনাবাহিনীকে তাদের সাফল্য, ত্যাগ ও সেবার প্রতি স্বীকৃতি জানাতেই এ আকস্মিক সফরে ইরাকে যান ট্রাম্প।

রাজধানী বাগদাদের পশ্চিমে বিমানঘাঁটিতে নেমেই সেনাদের কাজের জন্য তাদের ধন্যবাদ জানান তিনি। প্রায় দুই বছর ধরে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালনকালে এ প্রথমবারের মতো ইরাকে গেলেন ট্রাম্প। ইরাকের প্রতিবেশী দেশ সিরিয়া থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেওয়ার কয়েকদিনের মাথায় এ সফরে গেলেন তিনি। হঠাৎ এ সফরে এসে ট্রাম্প ইরাকে সাড়ে ৩ ঘণ্টার মতো সময় অতিবাহিত করেন। যুক্তরাষ্ট্রে ফেরার পথে তিনি জার্মানির রামস্টাইন বিমানঘাঁটিতে থেমে দেড় ঘণ্টা অবস্থান করেন। এখানে ঘাঁটির একটি হ্যাঙ্গারে উপস্থিত কয়েকশ’ সেনার মধ্যে কয়েকজনের সঙ্গে হাত মেলান ও ছবি তোলেন। 


এদিকে ট্রাম্পের ইরাক সফরকে দেশের সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘন বলে সমালোচনা করেছেন দেশটির রাজনীতিক ও মিলিশিয়া নেতারা। এ ঘটনায় পার্লামেন্টের জরুরি অধিবেশন দাবি করেছেন শিয়াপন্থি ইসলাহ পার্লামেন্টারি ব্লকের নেতা সাবাহ আল সাদি। তিনি বলেন, এটি ইরাকের সার্বভৌমত্বের স্পষ্ট লঙ্ঘন। ট্রাম্পের নিজের সীমা সম্পর্কে জানা উচিত। ভবিষ্যতে এ ধরনের আগ্রাসন বন্ধ করতে পার্লামেন্টকে আলোচনার আহ্বান জানান এ রাজনীতিক। ইরান সমর্থিত মিলিশিয়া নেতা হাদি আল আমিরির নেতৃত্বাধীন বিনা ব্লকের পক্ষ থেকেও ট্রাম্পের এ সফর নিয়ে তাদের আপত্তির কথা জানানো হয়েছে। বিনা ব্লকের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের এ সফর কূটনৈতিক রীতিনীতির সুস্পষ্ট ও ভয়াবহ লঙ্ঘন। এর মধ্য দিয়ে তিনি ইরাক সরকারের প্রতি তাচ্ছিল্য দেখিয়েছেন।

এদিকে এক বিবৃতিতে ইরাকি প্রধানমন্ত্রী আদেল আবদুল মাহদির দপ্তর জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ওই সফর সম্পর্কে ইরাকের নেতৃত্বকে সময়ের আগেই জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষ।  ইরাকে গত বছর আইএস পরাজিত হওয়ার পর থেকে দেশটিতে ব্যাপক মাত্রার কোনো সহিংসতা দেখা যায়নি। এরপরও ইরাকি বাহিনীগুলোকে প্রশিক্ষণ ও তাদের সামরিক উপদেষ্টা হিসেবে দেশটিতে ৫ হাজার ২০০ জন মার্কিন সেনা অবস্থান করছেন। দ্য গার্ডিয়ান, আলজাজিরা

আর্কাইভ

শুক্রশনিরোবসোমমঙ্গলবুধবৃহ
123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031

About masud

Check Also

সুস্থ্য জাতি পেতে ইভটিজিং ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সকলকে সচেতন হতে হবে-ইউএনও সাইফুল ইসলাম

আরিফ রববানী,(ময়মনসিংহ) ময়মনসিংহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইফুল ইসলাম বলেছেন-একটি সুস্থ্য জাতি পেতে প্রয়োজন একজন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!